www.jhalokathisomoy.com
মুক্তচিন্তার অনলাইন সংবাদপত্র, ঝালকাঠি, ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮, ২৯ অগ্রহায়ণ, ১৪২৫
শিরোনাম

শরীরে প্রোটিন ঘাটতির ৭ লক্ষণ

জীবন যাপন ডেস্ক | August 19, 2018 - 11:40 am

হরমোন থেকে পেশী পর্যন্ত, আপনার শরীরের প্রতিটি একক উপাদানের জন্যই প্রোটিন প্রয়োজন। প্রোটিনের ঘাটতি বহু স্বাস্থ্যগত সমস্যার কারণ, তাঁর মধ্যে সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য হল কোয়াশিওকোর। প্রোটিন ঘাটতি আপনার শারীরিক কর্মক্ষমতা হ্রাস করে যা বেশ কিছু উপসর্গ দেখে সহজেই বুঝতে পারবেন আপনি।

শরীরে প্রোটিন ঘাটতির ৭ টি গুরুতর লক্ষণ জেনে নিন :

১। চুল পড়া: প্রোটিন চুলের একটি অপরিহার্য উপাদান। লম্বা এবং শক্তিশালী চুলের বৃদ্ধির জন্য প্রোটিন খুবই আবশ্যক। সুতরাং যখন এই অপরিহার্য ম্যাক্রোনিউট্রিয়েন্টের অভাব ঘটে আপনার চুল দুর্বল হয়ে যায়, ভঙ্গুর হয়ে যায় এবং চুল পড়ার সমস্যা দেখা যায়।

২। এডেমা: এডেমা এমন একটি রোগ যার ফলে অতিরিক্ত জল ধারণের কারণে চামড়া স্ফীত হয়ে যায়। এই অবস্থা প্রোটিন অভাবের একটি বড় লক্ষণ। এমন দেখা গেলে সতর্ক হন।

৩। ফ্র্যাকচারের ঝুঁকি বাড়ে: হাড় এবং পেশী দুই’ই প্রোটিনের অভাবে দুর্বল হয়ে যায়। শক্তিশালী হাড়ের জন্য প্রোটিন অত্যন্ত অপরিহার্য। প্রোটিন ক্যালসিয়ামের শোষণ বৃদ্ধি করে যা হাড়কে শক্ত করে রাখে।

৪। ঘা শুকোতে দেরি: যদি কোনও জায়গা কেটে যায় বা আঘাত পান তাহলে প্রোটিনের অভাবের কারণে সেটি সহজে সেরে যাবে না। প্রোটিনের অভাবের কারণে পেশীগুলির মেরামতিও সঠিকভাবে হয় না।

৫। খিদে বাড়া: ওজন হ্রাস করতে চাইলে হাই প্রোটিন খাদ্য তালিকার মধ্য দিয়ে যেতে হয়। কিন্তু শরীরে প্রোটিনের অভাব হলে খিদে বেড়ে যায়।

৬। অল্পেই ঠান্ডা লেগে যাওয়া: প্রোটিন আপনার শরীরের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ, কারণ এটি অ্যান্টিবডি নির্মাণ এবং রোগ প্রতিরোধ ক্কমতা বাড়ানোর সাথে গভীরভাবে সম্পর্কিত।। সুতরাং যখন প্রোটিনে র ঘাটতি হয় তখন ইমিউন সিস্টেম দুর্বল হয়ে পড়ে এবং ঠান্ডা লেগে যাওয়ার আশঙ্কা বেড়ে যায়।

৭। অ্যানিমিয়া: অ্যানিমিয়া এমন একটি রোগ যেখানে শরীর পর্যাপ্ত পরিমাণে লাল রক্ত কণিকা তৈরি করতে ব্যর্থ হয়। প্রোটিনের অভাব হলে অ্যানিমিয়ার ঝুঁকি বেড়ে যায়। প্রোটিন ঘাটতি ভিটামিন বি 1২ এর পরিমাণও হ্রাস করতে পারে যা আবার রক্তচাপের ভারসাম্যে সমস্যা তৈরি করে, শরীরকে ক্লান্ত করে।

(সময় টিভির খবর/সুমি/ডেস্ক)

মুক্তচিন্তার যে কোন ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান এ সাইটের তথ্য বা ছবি ব্যবহার করতে পারবেন, তবে সে ক্ষেত্রে তথ্য সূত্র উল্লেখ করতে হবে-সম্পাদক ঝালকাঠি সময়।